দীর্ঘদিন প্রবাসে বাস করে, বাংলা ভাষা ও সাহিত্য চর্চার কারণে ডায়াস্পোরা সাহিত্য একটু একটু বুঝি। মোজাফফর যখন ডায়াস্পোরা নিয়ে নানান পত্রিকায় লেখা শুরু করলো তখন থেকেই কৌতুহল বশত তার এই লেখাগুলোয় উঁকি ঝুঁকি চলত। এখানেই বলে রাখি মোজাফফর আমার দৃষ্টি কেড়েছে সেই তার ‘মসজিদ‘ ছোটগল্পটি থেকে। তার যেকোন বিষয়ে লেখা সরল গদ্য আমাকে টানে। ‘আমি কত পণ্ডিত‘ এই প্রবনতা তার লেখায় আমি কখনো পাইনি, হয়ত এটাই ভালোলাগার কারণ।‘ দক্ষিণ এশিয়ার ডায়াসপোরা সাহিত্য‘ বইটি প্রকাশিত হয়েছে সবেমাত্র। আমার কাছেও বইটি কাকতালীয়ভাবে দ্রুত পৌঁছে যায়। বিষয় বস্তু অনুযায়ী বইটির কলেবর ১৭৭ পাতা একটু হতাশ করেছে। অনেক বিষয়ে আরো বিস্তারিত জানার আগ্রহ রয়ে গেল। পরবর্তী সংস্করণে সে আশাপূরণের অনুরোধ জানিয়ে রাখলাম। বইটির শিরোনামে যেহেতু দক্ষিণ এশিয়া শব্দটি রয়েছে তাই বিশেষ করে দক্ষিন এশিয়ার অন্যান্য দেশের অংশটি আরোও বিস্তারিত আশা করেছিলাম। ডায়াস্পোরা আমার কাছে নতুন কোন বিষয় নয় তাই আগ্রহের সবটুকু গিয়ে পড়লো বাংলাদেশ পর্বে। বাংলাদেশে অভ্যন্তরীণ ডায়াসপােরা সাহিত্য নিয়ে এর আগে এমন লেখা চোখে পড়েনি। বিশেষ করে বাংলাদেশে বিহারি ডায়াসপােরা, বাংলাদেশে রােহিঙ্গা ডায়াসপােরা ও দেশভাগােত্তর ডায়াসপােরা সাহিত্য অংশটি। বিহারি ও রােহিঙ্গাদের পর্যালোচনা এবং প্রশ্নগুলো বেশ কৌতুহলোদ্দীপক। সিনেমা দেখে আনন্দের বহির্প্রকাশ যেমন তেমনি মোজাফফরের এই চ্যাপ্টার গুলো পড়ে হাততালি দিয়েছি। নির্জন রাতে পড়তে পড়তে একসাইটেড হয়ে গেছি। লাবনীকে (আমার স্ত্রী) বলতে শুনেছি "পেয়েছে এতদিন পরে একটি বই"। বইটি এক বৈঠকে পড়া তাই কিছু বিষয় একটু খটকা রয়েছে (আমার অজ্ঞতা)। পুনঃপাঠে হয়ত বিষয়গুলো পরিস্কার হয়ে যাবে। সম্পূর্ণ বইটি বাংলাদেশের পাঠকদের চিন্তায় দোলাদেবে বলে আমার বিশ্বাস।

পাঞ্জেরী পাবলিশার্স
২০১৯
৩২৫ টাকা


নিঃসঙ্গতার জীবনী

আমাদের কল্পনা করতে ভালেলাগে যে নিঃসঙ্গতা সর্বজনীন। আসলে তা নয়। লেখক নিঃসঙ্গতাকে আধুনিক যুগের একটি বহুমুখী পণ্য হিসেবে দেখছেন। আমরা সাধারণত ধারণা করে থাকি যে বার্ধক্যে অনিবার্যভাবে আসানিঃসঙ্গতা একটি স্বাভাবিক বিষয়। এর বাইরেনিঃসঙ্গতার কারন হিসেবে নতুন প্রযুক্তির উপর দোষারোপ করার পরিবর্তে আমাদের নিঃসঙ্গতাকে লেখক ঐতিহাসিক ভাবে বোঝার চেষ্টা করেছেন।

আলবার্তি মনে করেন, যে নিঃসঙ্গতার সাথে আমাদের সকলেরই কমবেশি পরিচিতি রয়েছে তা কয়েকশো বছর আগেও ছিল অপরিচিত। বর্তমানে শব্দটি একটি নতুন অর্থ গ্রহণ করেছে।

নিঃসঙ্গতার জীবনী বইটিতে ফে বাউন্ড আলবার্তি এমন একটি ধারণার ইতিহাস অনুসন্ধান করেছেন যা আজকের সময়ে বেশ মৌলিক বলে মনে হলেও এটি প্রায় ১৮০০ সালের দিকে উদ্ভাবিত একটি ধারনা।

সাহিত্য, সোশ্যাল মিডিয়া এবং কুইন ভিক্টোরিয়া সহ নানান ধরনের কেস স্টাডিজে আলবার্তি এই আধুনিক ধারণাকে পুনরায় মূল্যায়ন করার চেষ্টা করেছেন সাথে এর প্রতিকার ও প্রতিরোধের উপায় নিয়েও আলোচনা করেছেন।

বইটিতে মূলত কয়েকটি বিষয়ের উপর গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে;

* একাকীত্ব বা নিঃসঙ্গতার আদি এবং বর্তমান ধারনার মধ্যে পার্থক্য।
* Millennials দের একাকীত্ববোধের জন্য সোশ্যাল মিডিয়াকে আসলেই দোষ দেওয়া যায় কিনা?
* নিঃসঙ্গতার উত্থানের জন্য কি কি দায়ী এবং এগুলো থেকে পরিত্রাণের উপায়।



Read & Return

আমেরিকা তো একটা মহাদেশ। এদেশের এয়ারপোর্টের সংখ্যা প্রায় ২০ হাজার। এর মধ্যে সাধারন মানুষের ব্যবহারের জন্য উন্মুক্ত প্রায় ৫০০০। তার মধ্যে আনুমানিক ৫০০টি এয়ারপোর্টে কমার্শিয়াল প্লেন চালাফেরা করে। এয়ারপোর্ট কেন্দ্রিক যেকোন ব্যবসা বেশ লাভজনক। Read & Return তেমনি একটি ব্যবসা। তবে এটা বই পড়ানোর ব্যবসা। সাধারণ ভাবে যাত্রীরা এক এয়ারপোর্ট থেকে বই ভাড়া নেবেন এবং অন্য এয়ারপোর্টে ফেরত দেবেন। এতে করে চলতি পথে কম খরচে বই পড়া হলো।

No photo description available.
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ভাবতে পেরেছিলেন সেই ১৯১১ সালে অথচ আমরা ২০২০ সালেও সেটি পারি না।

এসাে হে আর্য, এসাে অনার্য,
হিন্দু মুসলমান।
এসাে এসাে আজ তুমি ইংরাজ,
এসাে এসাে খৃস্টান।
এসাে ব্রাহ্মণ শুচি করি মন
ধরাে হাত সবাকার,
এসাে হে পতিত করাে অপনীত
সব অপমানভার।
...সবারে-পরশে-পবিত্র-করা
তীর্থনীরে।
আজি ভারতের মহামানবের
সাগরতীরে।

About me

I am a big fan of Books and internet security. I am passionate about educating people to stay safe online and how to be a better book reader.
If you are interested then you can add me to your Social Media. You will also see the occasional post about a variety of subjects.

Contact

Name

Email *

Message *

Instagram

© Riton's Notes
riton.xyz